করোনা মহামারীতে মাঠে খেলা নেই। ফলে ফুটবলারদের আয়ের উৎস বন্ধ। প্রিমিরয়ার লীগের ফুটবলাদের অবস্থা কিছুটা ভালো হলেও একেবারেই অসহায় অবস্থা নিচের সারির লীগের অনেক ফুটবলারের। এমনকি অর্থের অভাবে পরিবারের হাল ধরতে না পারায় এক ফুটবলারের আত্মহত্যার চেষ্টার কথাও শোনা গিয়েছে। এমন অবস্থায় নিজেদের অস্ত্বিত্ব ধরে রাখতে হিমশিম খাচ্ছে তারা।

অসহায় এই ধরনের ফুটবলার ও কোচদের পাশে কিছুটা হলেও দাড়াতে প্রস্তুত হয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব এসোসিয়েশন (বিএফসিএ) এবং বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল এসোসিয়েশন (বিডিডিএফএ)। গতকাল ৬৪ জেলার ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি ও ঢাকা প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় বিভাগ এবং পাওনিয়ার লীগের দলগুলোর সাধারণ সম্পাদকদের মোবাইলে ক্ষুদে বার্তা দিয়েছেন বিএফসিএ সভাপতি ও বিডিডিএফএ সাধারণ সম্পাদক তরফদার রুহুল আমিন। প্রতিটি জেলার ও ঢাকার ক্লাবগুলো থেকে দশজন করে অসহায় ফুটবলারের পাশে দাড়াতে চায় তারা। এই জন্য তাদের নাম ও ফোন নাম্বারের তালিকা ইমেলের মাধ্যমে পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন। এই বিষয়ে বিএফসিএ ও বিডিডিএফএ এর কর্ডিনেটর আহমেদ সায়েদ আল ফাতাহ অফসাইডকে জানান, ‘বিএফসিএ ও বিডিডিএফএ হতে ৬৪ জেলা, প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বিভাগের ৪৮টি ক্লাব এবং পাইওনিয়ার লীগের ৭০টি ক্লাবের জেলা এবং ক্লাব প্রতি ১০ জন করে বর্তমানে ফুটবল খেলছে এমন দুস্থ ফুটবল খেলোয়াড়দের সহায়তা প্রদান করা হবে।’

তবে এটিই প্রথম নয়, করোনা ভাইরাসের শুরুর দিকেও উক্ত দুই প্রতিষ্ঠান হতে কিছু কোচদের সহায়তা প্রদান করা হয়েছিলো। উক্ত বিষয়ে আহমেদ সায়েদ আল ফাতাহ অফসাইডকে বলেন, ‘এর আগেও বাংলাদেশ জেলা ও বিভাগীয় ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ফুটবল ক্লাব অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ৬৪ জেলা, ৫৫ টি ফুটবল ক্লাব এর জেলা এবং ক্লাব প্রতি তিনজন ফুটবল কোচ কে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে করোনাভাইরাস শুরু হওয়ার পরপরই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here