সরোয়ার জাহান : বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডের ফিরতি লেগে আফগান সিংহকে রুখে দিয়েছে বেঙ্গল টাইগারসরা। নিজের দলের পারফরম্যন্সের সন্তুষ্ট কোচ জেমি ডে।

এই ড্রয়ে এক পয়েন্ট নিয়ে আত্মবিশ্বাস আরো বেড়েছে বলে মনে কোচ জেমি ডে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন,

‘আমরা প্রথমার্ধে ভালোই ডিফেন্স করেছি, কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ছেলেরা কিছুটা ছন্নছাড়া খেলেছে, যার ভুলে গোল হজম করতে হয়। তবে শেষের ২০ মিনিট দল দুর্দান্ত ফর্মে ছিলো। এই গোল দলে আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনবে, যা পরবর্তী ম্যাচগুলোতে লড়াইয়ের প্রেরণা জোগাবে।’

এই ড্রয়ে ফুটবলারদের প্রশংসা করে কোচ আরো বলেন,

‘আমাদের ছেলেরা দারুণ লড়াই করেছে,গোল হজম করেও ম্যাচের শেষ মুহুর্তে পর্যন্ত লড়েছে এবং গোল আদায় করে নিয়েছে।’

বিশ্বকাপে এশিয়া অঞ্চলের বাছাই পদ্ধতি এক সময় এক এক রকম হয়। ২০১৪-এর ব্রাজিল বিশ্বকাপের প্রাক বাছাই পর্বের ২ ম্যাচে জয় লাভ করলে প্রাক বাছাইয়ে পাকিস্তানকে হারালেও, লেবাননের কাছে হেরে গোল ব্যবধানে বাছাই পর্বে কোয়ালিফাই করতে পারেনি বাংলাদেশ। এছাড়া গত রাশিয়া বিশ্বকাপে দ্বিতীয় রাউন্ডে এক ম্যাচ ড্রয়ের ফলে মাত্র এক পয়েন্ট নিতে সক্ষম হয় তারা।

তাই এই ড্রয়ের ফলে ফুটবলাররা নতুন এক ইতিহাস গড়েছে বলে দাবি করছেন কোচ জেমি।তিনি বলেন,

‘বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে দুই পয়েন্ট অর্জন করা বাংলাদেশের জন্যে একটা রেকর্ড, এর আগে তারা কখনোই দুই পয়েন্ট অর্জন করে নি। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ২ পয়েন্ট যেমন ইতিহাস তেমনি অলিম্পিক দল নিয়ে এশিয়ান গেমসের দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়াও রেকর্ড।’

তবে যায় আগেই বলা হয়েছে, এশিয়া অঞ্চলে একেকবার একেক নিয়মে বাছাইপর্ব অনুষ্ঠিত হয়, ২০১৮ সাল থেকে নতুন নিয়ম শুরু হয়েছে যা বর্তমানে চলছে। তবে ১৯৯৪ বাছাইতেও ৫ দলের গ্রুপে ছিল বাংলাদেশ, শ্রীলংকাকে দুইবার পরাজিত করে ৬ পয়েন্ট অর্জন করে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here