• প্রতিযোগীতা ও সময়

ফেডারেশন কাপ ২০২০ | ফাইনাল

বসুন্ধরা কিংস বনাম সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব

১০ জানুয়ারি, ২০২১ | বিকাল ৪.০০ টা | বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ঢাকা।

  • ম্যাচ পূর্ব ভাবনা

গুরুপূর্ণ এই ফাইনালের আহে বসুন্ধরা অধিনায়ক তপু বর্মণ বলেছেন,

‘সাইফ শক্তিশালী দল। তারা তিন-চার বছর একসঙ্গে খেলছে। যখন তারা শুরু করেছিল, তখন তরুণ ছিল, তবে এখন তারা পরিণত। ওদের খুব ভালো স্ট্রাইকারও অছে। তবে আমরা যৌথভাবে রক্ষণ সামলাই, রক্ষণ জমাট রাখি। দলীয় পারফরম্যান্সে আমরা ভালো করেছি। যদি প্রতিপক্ষের দুর্বলতার সুযোগ কাজে লাগাতে পারি, তাহলে আমরা ভালো করবো।’

অন্যদিকে আত্মবিশ্বাসী সাইফ অধিনায়ক রিয়াদুল হাসান রাফি জানান,

‘আমাদের এই দলটি কয়েক মৌসুম ধরে একসঙ্গে আছে, নিজেদের সমন্বয়টা ভালো। আমরা ট্রফির জন্য লড়াই করবো। আর আমাদের আল আমিন খেলতে পারছে না। আগের ম্যাচে পা ভেঙে গেছে। যদি ট্রফি জিততে পারি, তাহলে তার জন্য তা উৎসর্গ করবো।’

সাইফ এসসি’কে নিয়ে সতর্ক কিংস কোচ অস্কার ব্রুজন বলেছেন,

‘সাইফ শক্তিশালী একটা দল। বল হারালে তারা দ্রুত পুনরুদ্ধার করতে পারে। উইংয়ে এবং আক্রমণভাগে তাদের ভালো খেলোয়াড় আছে। নিজেদের প্রতিও আমাদের যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস আছে। কিন্তু আমরা যদি নিজেদেরকে ফেভারিট মনে করি, তাহলে হারতে শুরু করবো। আমাদের সতর্ক হতে হবে। কেননা আমরা ইতিবাচক ফুটবল খেলা একটি দলের বিপক্ষে খেলবো।’

খেলোয়াড়দের খেলায় খুশি সাইফ কোচ পল পুট জানান,

‘সাইফ যে ফাইনালে উঠবে, সেটা অনেকেই প্রত্যাশা করেনি। এই দলটিকে ভবিষ্যতের শক্তিশালী দল হিসেবে দাঁড় করানোর চেষ্টা করছি। আমার মনে হচ্ছে, আমি যেটা চাচ্ছি, সেটা ছেলেরা মাঠে করে দেখাতে পারছে। তারা শৃঙ্ক্ষলাবদ্ধ এবং কঠোর পরিশ্রম করছে।’

  • দলের খবর

বসুন্ধরা কিংসের দলে তেমন কোন ইনজুরি সমস্যা নেই। আতিকুর রহমান ফাহাদ এখনও ম্যাচ নয়, তবে এটি চিন্তা কারণ হচ্ছে না। কেননা নিজেদের বেঞ্চের শক্তি ইতিমধ্যে প্রদর্শন করেছে কিংসরা। চার বিদেশীর মধ্যে আজও গোল করার মূল দায়িত্বে থাকবেন রাউল ব্যাসেরা। ইতিমধ্যে চার গোল করে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনি। টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড় হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে কিংসের ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার রবসন রবিনহো। এছাড়া বল তৈরি করে দেয়া মূল কাজ হলেও গত ম্যাচেই দলের প্রয়োজনে গোল করে দেখিয়েছেন আরেক ব্রাজিলিয়ান জনাথন ফার্নান্ডেজ। বেঞ্চ থেকে এসে ম্যাচে গতিপথ পাল্টে দিতে পারেন মতিন মিয়া, আলমগীর কবির রানা ও ইমন মাহমুদরা। এছাড়া পুরো টুর্নামেন্ট জুড়েই প্রশংসা কুড়িয়েছে দুই উইং ব্যাক বিশ্বনাথ ঘোষ ও রিমন হোসেন।

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের মূল শক্তির জায়গা ডিফেন্স। জাতীয় দলের রিয়াদুল রাফি, রহমত মিয়া ও ইয়াসিম আরাফাতে সাথে আছেন নাইজেরিয়ান ইমানুয়েল। তবে ম্যাচ জিততে যে গোলের প্রয়োজন তাও ঠিকভাবে করে যাচ্ছে আরেক বিদেশী কেনেথ। ইতিমধ্যে ৫ টি গোল করেছেন তিনি। এছাড়া সাইফের খেলা নিয়ন্ত্রন করছেন রহমতুল্লাহয়েভ। তরুণ এই দলটি ভালোই চ্যালেঞ্জ জানাবে অভিজ্ঞ কিংসকে।

লড়াইটা খেলোয়াড়দের পাশাপাশি দুই মাস্টারমাইন্ড কোচেরও। বাংলাদেশে নিজের চতুর্থ শিরোপা জয়ে পথে অস্কার ব্রুজন। তিনি জানেন কিভাবে বাংলাদেশ ট্রফি জয় করতে হয়। অন্যদিকে হাই প্রোফাইল পল পুট প্রথমবার এসেই দলকে ফাইনালে তুলেছেন। বড় মঞ্চে কাজ করার অভিজ্ঞতা অবশ্যই কাজে লাগাবেন তিনি।

  • পরিসংখ্যান

দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে বসুন্ধরা কিংস। দুইবারের দেখায় দুইবারই জয়ী তারা। দুইবার ফেডারেশন কাপের ফাইনাল খেলে একবার বিজয়ী হয়েছে অস্কারের দল। অন্যদিকে কিংসের সাথে আগে কখনও ম্যাচ না জেতা সাইফের এটিই দেশের প্রথম সারির ঘরোয়া ফুটবলে প্রথম ফাইনাল। দুই দেখায় কিংস গোল করেছে ৫ টি। সাইফ করেছে ২ টি।

  • সম্ভাব্য ফরমেশন ও একাদশ

কিংসকে ৪-৫-১ ফরমেশনেই দেখা যেতে পারে। রাউল ব্যাসেরা মূল ফরোয়ার্ডের কাজ করবেন। দুই উইংয়ে রবিনহো ও সুফিল খেলবেন। তবে গত ম্যাচে ভালো খেলা মতিনকে সুফিলের জায়গায় শুরুর একাদশে দেখা যেতে পারে।

বসুন্ধরা কিংসের সম্ভাব্য একাদশ – জিকো, বিশ্বনাথ, তপু, খালিদ, রিমন, জনি, জনাথন, বিপলু, রবসন, সুফিল, রাউল।

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে ৪-৩-৩ ফরমেশনে দেখা যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কেনেথ থেকে আজও গোল আশা করবেন সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের সমর্থকরা। তরুণ তুর্কি ফয়সাল ফাহিম ও আরিফুরকে নিয়েও আশাবাদী তারা। মধ্যমাঠ নিয়ন্ত্রণে নিতে হবে নিজের সেরা খেলাটাই দিতে হবে রহমতুল্লাহয়েভকে। সেমিফাইনালের শুরুর একাদশই ফাইনালে দেখা যাবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের সম্ভাব্য একাদশ – পাপ্পু, ইয়াসিন, রহমত, রহমতুল্লাহয়েভ, রাফি, ওকোলি, সাহেদ, ইমানুয়েল, ফাহিম, আরিফুর, কেনেথ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here