আজ (বৃহস্পতিবার) বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশীপ লীগের খেলা মাঠে গড়ানোর কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা হচ্ছে না। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের পেশাদার লীগ কমিটির নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউনের পর একসাথে শুরু হবে প্রিমিয়ার লীগ ও চ্যাম্পিয়নশীপ লীগের খেলা।

লকডাউন শেষ হবে আগামী ১৪ জুলাই। এরপরই শুরু হবে দেশের সর্বোচ্চ ফুটবলের দুই আসর। অতিবৃষ্টির ফলে মাঠের অবস্থা চিন্তা করে লকডাউনের মধ্যেও খেলা চালু রাখার ভাবনা থেকে বের হয়ে আসে বাফুফে। চলমান লকডাউনে খেলা শুরু করলেও তা আর চালু রাখেনি তারা। এছাড়া উঠে আসে ভিন্ন খবর। লকডাউনে খেলা চালু রাখার অনুমতি চেয়ে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে যে আবেদন করেছিলো ফেডারেশন, তাতে অনুমতি পায়নি তারা। এই বিষয়ে লীগ কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদী বলেন,

মাঠ তো খেলার অনপুযক্ত ছিলই সাথে সরকারের দেয়া নির্দেশনা তো আমাদের মানতে হবেই। যে কারনে আমরা লিগ স্থগিত রাখতে বাধ্য হয়েছি।’

একথায় অনুমতি না পাওয়ার বিষয়টি স্পষ্ট।

লকডাউনের পর খেলা শুরু হলেও তা ঢাকার বাইরে যাচ্ছে না। টার্ফে মাঠে খেলার বিষয়ে আগ্রহ নেই ক্লাব গুলোর। তাই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের সাথে বিকল্প ভেন্যু হিসেবে উঠে আসে ফর্টিস মাঠের কথা। এতে সম্মতি জানায় ক্লাবগুলো এবং লকডাউনের পর দুই মাঠে খেলা চালাবে ফেডারেশন এমন সিদ্ধান্ত হয়। সালা মুর্শেদী বলেন,

‘লক ডাউনের কারনে ঢাকার বাইরে ভেন্যুতে খেলতে যাওয়া উচিত হবে না। তাই ক্লাবগুলো আলোচনা করে ফর্টিস মাঠে খেলার ব্যাপারে আমাদের সাথে একমত হয়েছে। সেখানে ম্যাচ খেলার জন্য সব কিছুই রয়েছে, তাই সেখানে ম্যাচ আয়োজন করতে চাই।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here