সারাদিন ধরে হালকা ও মাঝারি ধরনের বৃষ্টিতে ধরণ বদলে যায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের। মাঠ হয়ে পড়ে কর্দমাক্ত। কিন্তু তাতেও থেমে থাকে নিই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ম্যাচ। বৃষ্টিস্নাত বিকেলে মুখোমুখি হয় ঢাকা আবাহনী এবং চট্টগ্রাম আবাহনী। কঠোর লকডাউনেও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমতি নিয়ে চলমান রয়েছে ঘরোয়া ফুটবল।

ম্যাচের একেবারে শুরুতেই আক্রমণে যায় চট্টগ্রাম আবাহনী। দুই মিনিটের মাথায় নাসির ক্রস নিক্সন গুলের্মে জালের মধ্যে রাখতে পারলেই গোল হতো। কিন্তু বল ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে গেলে ওই যাত্রায় বেঁচে যায় ঢাকা আবাহনী। ম্যাচের ২১ মিনিটে আক্রমণ হানে ঢাকা আবাহনী। কিন্তু সানডে চিজোবার হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর ১৩ মিনিট পর আবারো গোলের সুযোগ পায় ঢাকা আবাহনী। এবার সুযোগ হাতছাড়া করেননি সানডে চিজোবা। অগাস্তোর ক্রস থেকে বল বুক দিয়ে নামিয়ে নেন চিজোবা। এরপর গোল এরিয়ায় ঢুকেই নেন বাঁ পায়ের শট এবং বল পাঠিয়ে দেন প্রতিপক্ষের জালে। এতে করে লিড নিয়ে নেয় ঢাকা জায়ান্টরা।

৩৭ মিনিটে নিজেদের জালেই বল পাঠিয়ে দিচ্ছিলো চট্টগ্রাম আবাহনী নাসিরুল। কিন্তু বল গোলবারে লেগে ফিরে আসলে আত্মঘাতী গোলের হাত থেকে রক্ষা পায় চট্টলার দলটি। এতে প্রথমার্ধের এক গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে চায় আকাশি-হলুদরা।

ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতেই আবারো গোল করে ঢাকা আবাহনী। ম্যাচের ৫২ মিনিটে বক্সেড কিছুটা বাইরে থেকে মামুনুলের নেওয়া বাম পায়ের জোরালো শট রুখতে পারে নিই চট্টগ্রাম আবাহনী। এরপর গোল শোধের চেষ্টা চালায় চট্টগ্রাম আবহনী। কিন্তু আক্রমণ করেও গোল শোধ করতে পারি নিই এই দলটি। যার ফলে ম্যাচে ২-০ জয় পায় ঢাকা আবহনী।

এতে ১৭ ম্যাচে ১০ জয় দিয়ে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের ২য় স্থানে আছে ঢাকা আবাহনী। অন্যদিকে সমান ম্যাচ খেলে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের পূর্বের পঞ্চম স্থানে আছে চট্টগ্রাম আবাহনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here