বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ২০তম রাউন্ডের প্রথম দিনেই নির্ধারিত হয়ে গিয়েছিল এবারের মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন। মুন্সীগঞ্জে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবকে হারিয়ে ২ ম্যাচ হাতে রেখেই এবারের মৌসুমের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা নিশ্চিত করে ফেলেছে বসুন্ধরা কিংস। এবার পর দিনই নিশ্চিত হয়ে গেল এবারের আসরের রানার্স আপ। কুমিল্লায় শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে লিগের দ্বিতীয় স্থান নিজেদের দখলে রাখা নিশ্চিত করেছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। ইমন বাবু, রাফায়েল অগাস্তো, দানিয়েল কলিন্দ্রেস আর নাবিব নেওয়াজ জীবনের জোড়া গোলে ৫-০ গোলের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে মারিও লেমোসের শিষ্যরা।

কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকে আবাহনী। ফলাফলটাও আসে খুব দ্রুতই। ম্যাচের ৫ম মিনিটে রাকিব হোসেনের প্রচেষ্টা দুবার ফিরে আসে শেখ জামাল রক্ষণ থেকে। এরপর বক্সের সামনে বাইরে বল পেয়ে যান ইমন বাবু, ইমন বাবুর ডান পায়ের শটও ফিরে আসে রায়হান হাসানের গায়ে লেগে, ফিরতি বলে বা পায়ের জোরালো শটে অবশেষে বল জালে জড়াতে সক্ষম হন ইমন। এরপর ম্যাচের ৩৮তম মিনিটে কোস্টারিকান ফরোয়ার্ড দানিয়েল কলিন্দ্রেসের কর্নার থেকে দারুন হেডে গোল করেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার রাফায়েল অগাস্তো। এরপর বিরতির বাঁশি বাজার আগ মুহূর্তে স্কোর শিটে নাম তুলেন কলিন্দ্রেস। ৪২তম মিনিটে রাফায়েলের পাস থেকে বা পায়ের আলতো টোকায় বল জালে জড়ান তিনি। ফলে ৩-০ গোলের বড় লিড নিয়ে বিরতিতে যায় ধানমন্ডির জায়ান্টরা।

বিরতি থেকে ফিরে আবাহনীর খেলার গতি কিছুটা কমে যায়। বিপরীতে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা করে যায় শেখ জামাল। কিন্তু এক ওতাবেক ছাড়া কেউই আবাহনীর রক্ষণের জন্য হুমকির কারণ হতে পারেননি। উল্টো ম্যাচের শেষ কোয়ার্টারে এসে জোড়া গোল করে শেখ জামালকে বড় হারের স্বাদ উপহার দেন আবাহনী অধিনায়ক নাবিব নেওয়াজ জীবন। ৭৭তম মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে রাকিবের বাড়ানো বলে পা ছুঁইয়ে বল জালে পাঠান এই ফরোয়ার্ড। এর মিনিট পাঁচেক পর আবারও রাকিবের অ্যাসিস্টে গোল করেন জীবন। কর্নার থেকে ভেসে আসা বলে ব্যাক হেড করেন রাকিব, পোস্টের সামনে অরক্ষিত অবস্থায় থাকে জীবন শুধু মাথা ছুঁইয়ে ব্যাবধান করেন ৫-০। এই জয়ে ২০ ম্যাচে ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে থেকে এবারের লিগ শেষ করা নিশ্চিত করলো আবাহনী। অপরদিকে সমান ম্যাচে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের সমান ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যাবধানে ৪র্থ স্থানে অবস্থান শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here