বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ২০২১-২২ মৌসুমের ২০তম রাউন্ডেই নির্ধারিত হয়ে গিয়েছে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দল। বসুন্ধরা কিংসের হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের সাথে এবারের মৌসুমে রানার্স আপ শিরোপা নিশ্চিত করেছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। তাইতো লিগের শেষ দুই রাউন্ড পরিণত হয়েছে অনেকটাই নিয়ম রক্ষায়। কিন্তু রেলিগেশন জোনের লড়াইটা জমে উঠেছে শেষ দুই রাউন্ডে এসেই। এরই মধ্যে রেলিগেশন নিশ্চিত হয়েছে এবারই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলতে আসা স্বাধীনতা ক্রীড়া সংঘের। এবার তাদের সঙ্গে কোন দল নেমে যাবে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগে সেটাই নির্ধারণ হবে শেষ রাউন্ডে এসে। লিগ টেবিলে বর্তমানে ১০ম ও ১১তম স্থানে থাকা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র ও উত্তর বারিধারার মধ্যে যেকোনো একটি ক্লাব বিপিএল নেমে যাবে বিসিএলে।

লিগের ১৮তম রাউন্ড পর্যন্ত স্বাধীনতা ও মুক্তিযোদ্ধার অবনমন অনেকেই ভেবে নিয়েছিলেন। কিন্তু এরপর হঠাৎ করেই জেগে ওঠে মুক্তিযোদ্ধা। শেখ রাসেলের বিপক্ষে ড্র, এরপর মোহামেডানের বিপক্ষে জয় এবং সবশেষ ২১তম রাউন্ডে চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে ড্র করে রেলিগেশন জোন থেকে বেরিয়ে আসে ক্লাবটি।

তবে রেলিগেশন জোন থেকে বেরিয়ে আসলেও এখনো অবনমনের শঙ্কামুক্ত নয় মুক্তিযোদ্ধা। চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপক্ষে ড্র করায় এখন মুক্তিযোদ্ধার পয়েন্ট ১৬। তাদের পেছনে থাকা উত্তর বারিধারার পয়েন্ট ১৪। শেষ ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা খেলবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে এবং উত্তর বারিধারার প্রতিপক্ষ ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। এখানের পরিসংখ্যান অবশ্য কিছুটা মুক্তিযোদ্ধার পক্ষে। শেষ রাউন্ডে জিতলে সব সমীকরণ অর্থহীন করে বিপিএলে টিকে থাকবে মুক্তিযোদ্ধা। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধা ও বারিধারা দুই দলই হারলে বা দুই ম্যাচই ড্র হলে নেমে যাবে বারিধারা, টিকে থাকবে মুক্তিযোদ্ধ। আর বারিধারার টিকে থাকতে হলে আবাহনীর বিপক্ষে জয় এবং মুক্তিযোদ্ধার পয়েন্ট হারানোর দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here