ফেডারেশন কাপের প্রথম সেমিফাইনালে বড় জয় পেয়েছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। চট্টগ্রাম আবাহনীকে ৩-০ গোলে পরাজিত করেছে পল পুটের দল। এতে প্রথমবারের মতো ফেডারেশন কাপের ফাইনালে পৌঁছালো তারা।

খেলার শুরু ৮ মিনিটেই লিড নেয় সাইফ। উজবেক খেলোয়াড় সিরোজউদ্দিনের ফ্রি কিক থেকে আসা বল চট্টগ্রাম আবাহনীর অধিনায়ক দিদিয়ের বক্সের ভেতর ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হন। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে সাইফের নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার এমানুয়েল আরিওচুকু বা পায়ের কোনাকুনি শটে বল জালে জড়িয়ে দেন। ম্যাচের ২১ মিনিটে সিরোজউদ্দিনের জোরালো শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে গেলে ব্যবধান দ্বিগুণ হয়নি। ম্যাচের ২৯ মিনিটে সমতা ফেরানোর সুযোগ পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। মোনায়েম রাজুর পাস থেকে রাকিব হোসেন বক্সে ঢুকে শট নেন। তবে তা ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে ১-০ গোলের লিড নিয়েই বিরতিতে যায় সাইফ।

বিরতির পর আরো গুছিয়ে খেলে সাইফ এসসি।তাদের লিড দ্বিগুন হয় ম্যাচের ৭১ মিনিটে। ডান দিল থেকে আরিফুরের উড়িয়ে দেয়া বল নাইজেরিয়ান ইকেচুকু কেনেথ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সাইড ভলিতে বল তিন কাঠির ভিতর পৌঁছে দেন। দুই গোলে পিছিয়ে পড়া চট্টগ্রাম আবাহনীর বিপদ আরো বাড়ে ৭৬ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনী অধিনায়ক দিদিয়ের লাল কার্ড দেখলে। সাইফের আল আমিনকে মারাত্মক ট্যাকেল করেন তিনি।এতে ম্যাচের দ্বিতীয় হলুদ কার্ডের সাথে দেখেন লাল কার্ড।

৭৯ মিনিটে চট্টগ্রাম আবারো সুযোগ পায় ব্যবধান কমানোর। কিন্তু রাকিব হোসেনের শট ক্রসবারে লেগে ফিরে এসে হতাশা আরো বাড়ায়। খেলার শেষ মিনিটে চট্টগ্রাম আবাহনীর কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ইয়াসিন আরাফাত। দুই ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে অসাধারণ ফিনিশ করে ৩-০ গোলের জয় নিশ্চিত করেন তিনি।

আগামী ১০ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হবে ফেডারেশন কাপের ফাইনাল। সেখানে সাইফের মুখোমুখি হবে আগামীকালের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের বিজয়ী দল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here